Skip to main content

ওয়ার্ডপ্রেস কাষ্টমাইজেশন [পর্ব-১৫] :: ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে ক্যাটাগরি লিষ্টে Font Awesome আইকন যুক্ত করবেন যেভাবে।

কেমন আছেন সবাই?আশাকরি ভাল আছেন।আমিও মোটামুটি ভাল আছি।ব্যাস্ততা কাটিয়ে বেশকিছু দিন পর আবারও আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি ওয়ার্ডপ্রস কাষ্টমাইজেশন সিরিজের টিউটোরিয়াল নিয়ে!

 

যাহোক,ওয়ার্ডপ্রেস কাষ্টমাইজেশনের আজকের টিউটোরিয়ালে আমরা দেখব,কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেসের ক্যাটাগরি উইজেডের প্রতিটা ক্যাটাগরির নামের শেষে Font Awesome এর আইকোন যুক্ত করতে পারি।নিচের ছবিটা দেখুন তাহলে বুঝতে পারবেন আমরা কি করতে চাচ্ছি।

 

আমি ধরে নিচ্ছি Font Awesome কি,সেটা আপনি জানেন এবং কিভাবে যেকোন ওয়ার্ডপ্রেস থিমে Font Awesome ইন্সটল করে ব্যাবহার করতে হয়,সেটাও জানেন। যদি না জেনে থাকেন তাহলে ওয়ার্ডপ্রস থিমে Font Awesome ইন্সটল করার পদ্ধতি নিয়ে আমার এই লেখাটা দেখতে পারেন।

আজকের কোড গুলো ব্যাবহার করার জন্য আপনার থিমে অবশ্যই Font Awesome ইন্সটল থাকতে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেসের এই কাষ্টমাইজেশন টি আমরা যেভাবে সম্পূর্ণ করবঃ

  • থিমের functions.php ফাইল এডিট করব এবং
  • কিছু কোড যুক্ত করব।

তাহলে চলুন জেনে নিই কিভাবে ক্যাটাগরি লিষ্টে Font Awesome আইকন যুক্ত করবেনঃ

প্রথমে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে লগিন করে Dashboard থেকে Appearance>Editor যান এবং বর্তমান থিমের functions.php ফাইলটি এডিটরে ওপেন করুন।এরপর নিচের কোডটুকু কপি করে ?> এর আগে পেষ্ট করুন এবং Update file বাটনে ক্লিক করে সেভ করুন।

 function font_awesome_icon_in_category_list( $output )
 {  
     remove_filter( current_filter(), __FUNCTION__ );
     return preg_replace( '/<\/a>\s*<\/li>/i', ' 

‘, $output ); } add_action( ‘widgets_init’, function() { add_filter( ‘wp_list_categories’, ‘font_awesome_icon_in_category_list’ ); });

এবার দেখুন নিচের মত আপনার সাইটেও ক্যাটাগরি লিষ্টে প্রতিটা ক্যাটাগরি নামের শেষে Font Awesome এর আইকন যুক্ত হয়েছে।লক্ষ্য করুন, আপনি যদি আইকন পরিবর্তন করতে চান তাহলে উপরের কোডের মধ্য থেকে fa-angle-right লেখাটি মুছে আপনার পছন্দের আইকনের ক্লাস টি বসিয়ে দিন।

 

আজ এই অব্দি!ভাল থাকবেন সবাই।দেখা হবে আগামী পোষ্টে।

Facebook Comments

S.k.joy

খুব সাধারণ একজন। বসবাস গ্রামে। জন্ম, বেড়ে উঠা এখানেই। অসম্ভব ভালবাসা এই গ্রামীন জীবন, প্রকৃতি আর পরিবেশের প্রতি। কাজ পড়াশোনার ক্ষেত্রে বার বার সুযোগ এলেও শহরবাসী হয়ে উঠতে পারিনি শেষ পর্যন্ত। শহরের অতি আধুনিকতা, কংক্রিটে মোড়া সুউচ্চ অট্টেলিকায় বন্দি জীবন আমায় কখনও আর্কষিত করতে পারিনি। খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠে মেঠো পথে বেরিয়ে পড়ি সকালটাকে উপভোগ করতে। রাস্তার দুপাশে সারি সারি গাছ গুলোতে জেগে উঠা পাখিগুলো আমায় স্বাগত জানায়। বুক ভরে নিশ্বাস নিই। শিশিরে ভেজা ঘাস গুলো প্রতি মুহুর্তে সকালের কোমলতাকে জানান দেয়। সূর্যের রোদ সবার আগে গায়ে মেখে ফিরে আসি। দাদু-ঠাম্মা, ছোট ছোট ভাই বোন সবাইকে পরিবার। এইতো জীবন। খুশিতে ভরা জীবন। দূরে গিয়ে সবার থেকে আলাদা হয়ে নিজের মত থাকার মধ্যে জীবনের কোন মানে খুঁজে পাইনা আমি।