Skip to main content
কালার পিকার - জয়ের বাংলা ব্লগ

আসুন পরিচিত হই উইন্ডোজের জন্য দারুণ একটি কালার পিকার এর সাথে।

নমস্কার সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি আজকের লেখাতে। আজ আমরা কথা বলব একটি কালার পিকার নিয়ে। উইন্ডোজের জন্য মাত্র ১১ কিলোবাইটের একটি সফটওয়্যার দিয়ে আপনি যেকোন স্থানের কালার কপি করে ফেলতে পারবেন কেবলমাত্র একটি কমান্ড দিয়ে। অনেকে জানেন, আবার অনেকে নিয়মিত ব্যবহারও করছেন। আর যারা জানেন না তাদের জানাবার জন্য আজকের এই লেখা।

যারা ডিজাইন নিয়ে কাজ করেন। অন্যকোন স্থান থেকে কালার কপি করবার প্রয়োজন পড়ে তাদের জন্য এটি একটি দারুণ টুল। হ্যাঁ, মাত্র ১১ কিলোবাইটের পোর্টেবল এই সফটওয়্যারটির নাম PIXIE। এটি ডেভেলপ করেছে Nattyware। পোর্টেবল হওয়াতে নেই কোন ইন্সটলের ঝামেলা। ডাবল ক্লিক করেই ওপেন করা যাবে সফটওয়্যারটি। ওপেন করলে নিচের মত একটা ইন্টারফেস দেখা যাবে।

কালার পিকার - জয়ের বাংলা ব্লগ

আপনার মাউসের কার্সর ডেস্কটপের যেই স্থানে নিবেন সেই স্থানের কালার আপনি দেখতে পারবেন সফটওয়্যারটিতে। পাশাপাশি দেখা যাবে সেই কালারের বিভিন্ন ফরমেটের কোড। কপি করবার জন্য কিবোর্ড থেকে চাপতে হবে CTRL+ALT+C তাহলে কালার কোডটি উইন্ডোজের ক্লিপবোর্ডে কপি হয়ে যাবে।

কালার পিকার - জয়ের বাংলা ব্লগ

এবার ফটোশপ, ইলাস্ট্রেটর, কোড এডিটর সহ যেকোন স্থানে আপনি কোড পেষ্ট করলে আপনি সেইম কালার টি পেয়ে যাবেন।

কালার পিকার ডাউনলোড

দারুণ এই ইউটিলিটি সফটওয়্যার ব্যবহার করা যাবে উইন্ডোজের সকল ভার্সনে। ডাউনলোড করা যাবে নিচের লিংক থেকে।

ডাউনলোড

আজ এ পর্যন্ত। কথা হবে অন্যকোন লেখাতে। ভাল থাকবেন, নিরাপদে থাকবেন। ধন্যবাদ।

Facebook Comments

S.k.joy

খুব সাধারণ একজন। বসবাস গ্রামে। জন্ম, বেড়ে উঠা এখানেই। অসম্ভব ভালবাসা এই গ্রামীন জীবন, প্রকৃতি আর পরিবেশের প্রতি। কাজ পড়াশোনার ক্ষেত্রে বার বার সুযোগ এলেও শহরবাসী হয়ে উঠতে পারিনি শেষ পর্যন্ত। শহরের অতি আধুনিকতা, কংক্রিটে মোড়া সুউচ্চ অট্টেলিকায় বন্দি জীবন আমায় কখনও আর্কষিত করতে পারিনি। খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠে মেঠো পথে বেরিয়ে পড়ি সকালটাকে উপভোগ করতে। রাস্তার দুপাশে সারি সারি গাছ গুলোতে জেগে উঠা পাখিগুলো আমায় স্বাগত জানায়। বুক ভরে নিশ্বাস নিই। শিশিরে ভেজা ঘাস গুলো প্রতি মুহুর্তে সকালের কোমলতাকে জানান দেয়। সূর্যের রোদ সবার আগে গায়ে মেখে ফিরে আসি। দাদু-ঠাম্মা, ছোট ছোট ভাই বোন সবাইকে পরিবার। এইতো জীবন। খুশিতে ভরা জীবন। দূরে গিয়ে সবার থেকে আলাদা হয়ে নিজের মত থাকার মধ্যে জীবনের কোন মানে খুঁজে পাইনা আমি।