ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা

সকল ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা একটি অ্যাপসে। ব্যবহার করুন, কন্ট্রিবিউট করুন।

নমস্কার সবাইকে। স্বাগত জানাচ্ছি নতুন লেখাতে। সকল ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা সম্বলিত একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরী করেছি দেশের সকল ইলেকট্রনিক্স প্রেমীদের কথা মাথায় রেখে। আশাকরি আপনাদের কাজে আসবে, পরিশ্রম সার্থক হবে! ব্যবহার করবেন, শেয়ার করবেন এবং তর্থ্য দিয়ে অবশ্যই কন্ট্রিবিউট করবেন।

ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা

শুরুর দিকের কথা

হবির মধ্যে যে জিনিসটা সব থেকে বেশী টানে তা হল ইলেকট্রনিক্স, তাই কাজের ফাঁকে ইলেকট্রনিক্স চর্চার সুবাদে ফেসবুকে যুক্ত আছি বেশকিছু ইলেকট্রনিক্স গ্রুপে। মাঝে মধ্যেই অনেকেই পোষ্ট করে বিভিন্ন এলাকার ইলেকট্রনিক্স শপের নাম, ঠিকানা, ফোন নাম্বার জানতে চান। কখনও পোষ্টকারী সঠিক নাম ঠিকানা পান আবার কখনো পান না। এর মধ্যে কিছুদিন আগে আমাদের ইলেকট্রনিক্স গ্রুপে একজন পোষ্ট করে প্রস্তাব রাখেন প্রত্যেক এলাকার ইলেকট্রনিক্স শপের নাম, ঠিকানা, ফোন নাম্বার সম্বলিত একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস তৈরীর। প্রস্তাব টা পছন্দ হয়, সবার উপকারে আসবে ভেবেই মূলত এই অ্যাপস তৈরীর পথে এগিয়ে চলা।

অনেকেই চাচ্ছিল যে অ্যাপস ব্যবহার করতে যেন ইন্টারনেট কানেকশনের প্রয়োজন না পড়ে। কারণ অনেকে ফ্রি ফেসবুক ব্যবহার করেন। কিন্তু আমার একার পক্ষ্যে একবারে কতগুলো ইলেকট্রনিক্স শপের তর্থ্য যোগাড়/ইনপুট করা সম্ভব!! তাই সিদ্ধান্ত নিলাম অ্যাপসের ডেটাবেজ হবে অনলাইন যাতে নতুন যুক্ত করা তর্থ্য গুলো সহজেই সবার হাতে পৌছে যেতে পারে। এছাড়া যাতে প্রত্যেকে তার নিজের এলাকার শপগুলোর তর্থ্য অ্যাপসে যুক্ত করতে পারে তার সুবিধা থাকবে। এতে ডেটা এন্ট্রির চাপ কারো একার উপর পড়বেনা।

ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা সম্বলিত অ্যাপস তৈরী

সিদ্ধান্ত এবং স্কেচ অনুযায়ী অ্যাপস তৈরী শুরু করি ১৭ তারিখে। কাজের ফাঁকে ফাঁকে এগিয়ে চলে অ্যাপস ডেভেলপমেন্টের কাজ। ৯০% কাজ শেষ করি ২৬ তারিখে। এরপর আর সময় করে উঠতে পারিনি। দুদিন জার্নি আর নিজের নতুন পিসির সেটাপে কেটে যায় কয়েকদিন। বাকি কাজ টুকু শেষ করি ৩০ তারিখে। অ্যাপসের নাম দিই ALL EEE Shop BD 

অ্যাপস ডাউনলোড

নিচের ডাউনলোড লিংক থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন ALL EEE Shop BD অ্যাপস। এটি এন্ড্রয়েড কিটক্যাট থেকে পরবর্তী ভার্সন গুলোতে ঠিকমত রান করবে।

ALL EEE Shop BD(3.6mb).apk

অনেকে হয়ত প্লেস্টোরের লিংক চাইবেন। তাদের জন্য কেবলমাত্র একটিই শব্দ দুঃখিত 🙁। কারণ প্লেস্টোরে আমার ডেভেলপার একাউন্ট নেই। আমি শখের অ্যাপস ডেভেলপার, তাই এই মুহুর্তে ২৯ ডলার খরচ আমার পক্ষ্যে সম্ভব না। তবে আপনি উপরে আমার নিজের সার্ভারের দেওয়া লিংক থেকে ডাউনলোড করে নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন। এই অ্যাপস কেবলমাত্র ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়া আর কোন স্পেশাল পারমিশন রিকোয়ার করেনা।

ইন্সটল এবং ব্যবহার

অন্যান্য অ্যাপসের মতই এটি ইন্সটল করুন। এরপর ওপেন করুন। তবে তার আগে অবশ্যই ইন্টারনেট কানেকশন চালু করে নেবেন। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে নিচের মত ইন্টারফেস আপনার সামনে হাজির হবে।

ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা

 

নির্দিষ্ট অঞ্চলের ইলেকট্রনিক্স/ইলেকট্রিক্যাল শপ খুঁজে পেতে প্রথমে বিভাগ নির্বাচন করুন, এরপর জেলা নির্বাচন করুন। এবার খুঁজুন বাটনে ক্লিক করুন। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আপনি নির্বাচিত জেলার অধীনে নিচের মত ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা দেখতে পারবেন।

ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা - Skjoy

উপরের ছবিতে দেখতেই পাচ্ছেন প্রত্যেকটা ইলেকট্রনিক্স/ইলেকট্রিক্যাল শপের নামের সাথে ঠিকানা এবং ফোন নাম্বার দেওয়া আছে। ফোন নাম্বারের উপরে ক্লিক করে অ্যাপস থেকে কল করা যাবে। কাজেই বেরোবার আগে জেনে নিতে পারবেন যে আপনি যে কম্পোনেট/পন্য খুঁজছেন তা উক্ত শপে আছে কিনা। কাজেই সময় এবং অর্থ উভয়ের অপচয় রোধ হবে।

নতুন শপ কিভাবে যুক্ত করবেন (কন্ট্রিবিউট)

আপনার চেনাজানা ইলেকট্রনিক্স/ইলেকট্রিক্যাল শপ যা অ্যাপসে অন্তভূক্ত নেই তা আপনি চাইলেই অ্যাপসের ডেটবেজে যুক্ত করতে পারবেন। নতুন শপ যুক্ত করতে মেনু থেকে Add Shop পেজে যান। নিচের মত একটি ফর্ম দেখতে পারবেন। প্রথমে বিভাগ, তারপর জেলা নির্বাচন করে বাদ বাকি তর্থ্য গুলো সঠিকভাবে পূরণ করুন। ৬ সংখ্যার পিন নাম্বারটি অবশ্যই মনে রাখবেন এবং প্রত্যেকটা শপ যুক্ত করার সময় একই পিন নাম্বার ব্যবহার করবেন।

336 x 280 Large Rectangle for skjoy.info

ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা - SKJOY.INFO

 

আপনি যদি কোন অনলাইন শপ যুক্ত করতে চান, তাহলে শপের নামের পাশে ফাষ্ট ব্রাকেটের মধ্যে Online Shop কথাটি উল্লেখ করে দেবেন। ঠিকানার স্থলে অনলাইন শপের ঠিকানা কিংবা ওয়েব এড্রেস দিতে পারেন। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে যুক্ত করুন  বাটনে ক্লিক করবেন। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই আপনার দেওয়া তর্থ্য অ্যাপসের রিমোট ডেটাবেজে যুক্ত হয়ে যাবে। তবে ডেটাবেজে যুক্ত হলেই সাথে সাথে সেই তর্থ্য সাধারণ ব্যবহারকারী দেখতে পারবেন না। একজন এডমিন তর্থ্যটি যাচায় করে অনুমোদন করার পরেই তর্থ্যটি সবার জন্য উনুক্ত হবে। তবে নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন যে, আপনার দেওয়া তর্থ্য গ্রহণযোগ্য হলে তা দ্রুত অনুমোদন করা হবে।

যুক্ত করা শপগুলো কিভাবে দেখবেন?

উপরেই বলেছি যে প্রত্যেকটা শপ যুক্ত করার সময় ৬ সংখ্যার একই পিন নাম্বার ব্যবহার করবেন। এই পিন নাম্বার ব্যবহার করে আপনি যে শপগুলো যুক্ত করেছেন তা দেখতে পারবেন। এর জন্য অ্যাপসের মেনু থেকে My Shops পেজে যান। এরপর ৬ সংখ্যার পিন নাম্বারটি প্রবেশ করান। এরপর দেখুন বাটনে ক্লিক করলে আপনি আপনার যুক্ত করা শপগুলোর তালিকা দেখতে পারবেন। এই ৬ সংখ্যার পিন নাম্বার দিয়েই আপনি পরবর্তীতে আপনার যুক্ত করা শপগুলোর তর্থ্য এডিট, ডিলিট সহ নানান কাজ করতে পারবেন।

ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা - SKJOY.INFO

 

কেন কন্ট্রিবিউট করবেন?

জীবনের প্রয়োজনে আমাদের ঘুরে বেড়াতে হয় দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। নতুন স্থানে গেলেই কি ইলেকট্রনিক্স চর্চা থেমে যায়? নাহ, ইলেকট্রনিক্সের মত সৃজনশীল কাজ থামানো সম্ভব না। তাই তো চলতে থাকে একের পর এক প্রজেক্ট তৈরীর কাজ। স্বাভাবিক ভাবেই নতুন অঞ্চলের শপগুলো আপনার চেনার কথা নয়। তাই বের হবার আগেই এই অ্যাপস ব্যবহার করে পাশের ইলেকট্রনিক্স শপ সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন। ফোন করে জেনে নিতে পারবেন যে, আপনি যে কম্পোনেন্টটি খুঁজছেন তা উক্ত শপে আছে কিনা।

এই যে আপনি রুমে বসে পাশের ইলেকট্রনিক্স শপটি খুঁজে পেলেন, এটা আপনার মতই কোন একজন ইলেকট্রনিক্স প্রেমী যুক্ত করেছেন অন্যাকারো উপকারে আসবে এটা ভেবেই। তাই আপনারও দায়িত্ব হবে আপনার চেনা জানা শপটি যুক্ত করা। এতে সাহায্যের হাত প্রসারিত হবে, অ্যাপস সমৃদ্ধ হবে আর এগিয়ে যাবে মাতৃভাষায় আমাদের ইলেকট্রনিক্স চর্চা।

ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়া কি চলবেনা?

না, অ্যাপসের বর্তমান ভার্সন ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়া চলবেনা। কেননা, অ্যাপসের ডেটাবেজ রিমোট। আর রিমোট ডেটাবেজ হবার অনেক সুবিধা। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন শপের তর্থ্য অ্যাপসে যুক্ত হতে থাকবে। আর রিমোট ডেটাবেজের ফলে আপনি মাত্র কয়েক কিলোবাইট ইন্টারনেট খরচ করে নতুন যুক্ত হওয়া তর্থ্য গুলো পেতে থাকবেন। হ্যা, মাত্র কয়েক কিলোবাইট!!! অ্যাপস এমনভাবে ডিজাইন এবং প্রোগ্রাম করা হয়েছে যে খুব কম পরিমাণ ডেটা খরচ করে চলতে পারবে। তবে যারা ফ্রি ফেসবুক ব্যবহার করেন তাদের আশাহত হবার কিছু নেই। আপনাদের জন্য পরবর্তী ভার্সনে এমন ফিচার যুক্ত করে দেবো যাতে একবার রিমোট ডেটাবেজ ডাউনলোড করে পরবর্তীতে ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়া ব্যবহার করা যায়। আর তাছাড়া বর্তমানে ইন্টারনেটের দাম তো অনেক কম।

নতুন ভার্সন কিভাবে ডাউনলোড করবেন?

স্বাভাবিক ভাবেই আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে, যেহেতু অ্যাপস প্লেস্টোরে হোষ্ট করা হয়নি তাই নতুন ভার্সন রিলিভ হলে কিভাবে জানতে পারবেন। হ্যাঁ, এর সমাধান অ্যাপসের মধ্যেই আছে। অ্যাপসের মেনু থেকে Check Update এ ক্লিক করলে নতুন ভার্সন রিলিভ হয়েছে কিনা জানতে পারবেন এবং সেখান থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন।

ইলেকট্রনিক্স শপের তালিকা - SKJOY.INFO

অ্যাপস ডেভেলপ করে আমার লাভ কি!!

আমি জানি এমন প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে। তাই আগেই উত্তর টা দিয়ে দিলাম। হ্যাঁ আপনি ঠিকই পড়েছেন, আপনাদের জন্য অ্যাপস ডেভেলপ করে আমার লাভ কি। এক কথায়…কোন লাভ নেই, আত্নপ্রশান্তি ছাড়া। আপনি হয়ত শুনে থাকবেন যে অ্যান্ডয়েড অ্যাপসের মধ্যে বিজ্ঞাপন দিয়ে ডেভেলপার ইনকাম করতে পারে। কিন্তু খুশির কথা হল, অ্যাপস ফুল ফ্রেশ, এর মধ্যে কোন বিজ্ঞাপন কিংবা এই জাতীয় কিছু নেই। আমি আপনার মত একজন ইলেকট্রনিক্স প্রেমী, তাই অন্যদের উপকারে আসবে ভেবেই মূলত এই অ্যাপস ডেভেলপ করা। যদি আপনি ব্যবহার করেন, আপনার উপকারে আসে তাহলে অবশ্যই ফ্রেন্ডদের সাথে শেয়ার করবেন। তাতেই আমার পরিশ্রম সার্থকতা পাবে।

আজ এই পর্যন্ত। ভাল থাকবেন সবাই। ভূল ক্রটি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। দেখা হবে অন্যকোন লেখাতে।

S.k.joy

খুব সাধারণ একজন আমি, গ্রামের ছেলে। হয়ত আপনার ভাবনার কিংবা কল্পনার থেকেও সাধারণ। ভাল লাগে প্রোগ্রামিং, ডিজাইন আর ইলেকট্রনিক্স। আর এসব নিয়েই দিন কেটে যায়। একা থাকলেও একাকীত্ব আমাকে ছুতে পারেনা। কাজের ব্যাপার একটু বেশী স্বাধীন মানুষ আমি। মুক্ত বাতাসের আমার অভাব নেই।